আমাদের সম্পর্কে

শিখরী ফাউন্ডেশন

“একটি অরাজনৈতিক, লাভজনক, স্বেচ্ছাসেবী, শিক্ষা সমাজকল্যাণমূলক সংগঠন

প্রধান কার্যালয়

অলহরী ঘাটপাড়, ত্রিশাল, ময়মনসিংহ-২২২০

ফোন: ০১৭৪৩৪৫৮৭৯৩, ০১৭৩৭৭২৮২৪১, ০১৭৫৯৯২৭৫২৯

ই-মেইল: shikhorifoundation@gmail.com

ফেসবুক: www.facebook.com/shikhori.foundation

ওয়েবসাইট: www.shikhorifoundation.org

অনুচ্ছেদ-১

(প্রস্তাবনা)

বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে আমাদের ঘরে বসে থাকার সুযোগ নেই অথবা কেউই একা পথ চলার ফুরসত নেই । তাই, আমাদের চিন্তা, চেতনা ও বুদ্ধির বিকাশকে কাজে লাগিয়ে মানুষের কল্যাণের জন্য নতুন কিছু সৃষ্টি করতে পারলে তবেই আমরা জাতি হিসেবে টিকে যাবো। উপকৃত হবে সমাজ, জাতি এবং আগামী প্রজন্ম।

এই মনোভাব থেকেই আমরা ২০১৫ সালের ২রা এপ্রিল ‘‘শিখরী ফাউন্ডেশন’’ নামে একটি অরাজনৈতিক, অ-লাভজনক, স্বেচ্ছাসেবী, শিক্ষা ও সমাজকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছি।

আমরা অঙ্গীকার করছি যে, ‘‘শিখরী ফাউন্ডেশন’’ সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে এই গঠনতন্ত্রের প্রাধান্য অক্ষুন্ন রাখা এবং এর রক্ষণাবেক্ষণ, সমর্থন ও নিরাপত্তা বিধান আমাদের পবিত্র দায়িত্ব।

এই মর্মে অত্র সাধারণ পরিষদে আজ বাংলা ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৪ সন মতে ৭ই মার্চ, ২০১৮ খ্রিঃ তারিখে আমরা, ‘‘শিখরী ফাউন্ডেশন’’ এর সকল সদস্যবৃন্দ এই গঠনতন্ত্র রচনা ও লিপিবদ্ধ করে সমবেতভাবে গ্রহণ করলাম।

ধারা ১.ক। প্রতিষ্ঠানের নাম: এই ফাউন্ডেশনের নাম নিম্নলিখিত পদ্ধ্বতি অবলম্বন করে লিখতে হবে এবং এর কর্মক্ষেত্রের সর্বত্র এই নামে পরিচিত হবে:

বাংলায় :  শিখরী ফাউন্ডেশন

২। In English: Shikhori Foundation

ধারা ১.খ। প্রতিষ্ঠানের স্লোগান: “শিক্ষা ও সমাজসেবায় অগ্রণী’’-এই স্লোগান নিয়ে “শিখরী ফাউন্ডেশন” সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

ধারা ১.গ। লোগো: প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব লোগো থাকবে।

ব্যাখ্যা:

লোগোর সবুজ অংশ বাংলাদেশের সবুজ জমিনকে বোঝাবে। লাল বোঝাবে ভোরের লাল সূর্য। আমরা তরুণরা নতুন সূর্য উঠাবো। বৃক্ষ হচ্ছে বিন্দু থেকে সহিষ্ণুতার সাথে ত্যাগের মাধ্যমে বেড়ে ঊঠার প্রতীক । আমরা তরুণ শিখরীরা বৃক্ষের মতো পরের শত অবহেলা সহ্য করে নিজের সবকিছু পরের কল্যাণে বিলিয়ে দেয়ার মাধ্যমে সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা করবো।

 

ব্যবহারের নিয়মাবলী :

এই লোগো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ব্যতীত অন্য কেউ ব্যবহার করতে পারবে না। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বলতে বোঝাবে ফাউন্ডেশনের সদস্য, ফাউন্ডেশন কর্তৃক অনুমদিত এবং অনুমতি প্রাপ্ত ব্যক্তি।

ধারা ১.ঘ।

১। মোহাম্মদ মেহেদী কাউসার ফরাজী, মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম মনির, হাফিজুল ইসলাম হাবীব এবং ফাহিম আহম্মেদ মন্ডল প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা এবং প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে মর্যাদা লাভ করবেন।

২। শিখরী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতাদের অবদানকে স্মরণীয় করে রাখতে তাঁদের নাম ও পদবি (প্রতিষ্ঠাতা, শিখরী ফাউন্ডেশন) -সহ ছবি ফাউন্ডেশন কার্যালয়ের দেয়ালে টানিয়ে রাখার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

৩। প্রতিষ্ঠাতাদের জীবদ্দশায় ফাউন্ডেশনের যেকোনো সভা, সেমিনার, প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন ইত্যাদি বিষয়ে তাঁদেরকে অবহিত করে কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে হবে।

ধারা ২.ক। প্রতিষ্ঠানের কর্মক্ষেত্র: সমগ্র বাংলাদেশে এর কর্মকান্ড পরিচালিত হবে।

ধারা ২.খ। কার্যালয়: বাংলাদেশের যেকোনো স্থানে (ন্যূনতম পৌরসভা এলাকা) এর প্রধান কার্যালয় স্থাপিত হবে।

ধারা ২.গ। সমগ্র বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠানের বিস্তার পরিপূর্ণতা লাভ সাপেক্ষে প্রতিষ্ঠানটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে।

অনুচ্ছেদ-২

(মূলনীতি)

ধারা ৩। লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য:

(ক) নিরক্ষরমুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত, শোষণমুক্ত এবং বৈষম্যহীন সমাজ গড়ায় অবদান রাখা,

(খ) জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলার জন্য পরিবেশ রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে সবুজ পৃথিবী গড়ে তোলা,

(গ) মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বলীয়ান হয়ে সুখী ও সমৃদ্ধশালী সমাজ প্রতিষ্ঠা,

(ঘ) সমাজের সার্বিক কল্যাণ সাধনের মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর ও বাসযোগ্য পৃথিবী রেখে যাওয়া।

(শিখরী ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ-এর ২৬/১২/২০১৫ খ্রিঃ ১ম বার্ষিক সাধারণ সভায়  গঠনতন্ত্র অনুমোদিত হয় এবং ০৭/০৩।২০১৮ তারিখে অনুষ্ঠিত তৃতীয় বার্ষিক সাধারণ সভায়  ‘সংশোধিত গঠনতন্ত্র-২০১৮’ সর্বসম্মতিক্রমে  গৃহীত করা হয়।)