পর্ষদসমূহ

গত ২৬শে ডিসেম্বর, ২০১৫ইং অনুষ্ঠিত শিখরী ফাউন্ডেশনের প্রথম বার্ষিক সাধারণ সভায় সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ১০ (দশ) অনুযায়ী এই ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক কাঠামোতে চারটি পরিষদ থাকবে। যথা: (ক) উপদেষ্টা পরিষদ, (খ) পরিচালনা পরিষদ, (গ) সাধারণ পরিষদ ও (ঘ) কার্য নির্বাহী পরিষদ।

 

(ক) উপদেষ্টা পরিষদ:

(১) শিখরী ফাউন্ডেশনের ন্যূনতম ০৭ (সাত) সদস্য বিশিষ্ট একটি উপদেষ্টা পরিষদ থাকবে।

(২) এই পরিষদের ০১(একজন) সদস্য প্রধাণ উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন এবং অন্যরা সদস্য হিসেবে থাকবেন,

(৩) এই পরিষদ ফাউন্ডেশন কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য সুচিন্তিত পরামর্শ ও সহযোগিতা প্রদান করবেন।

(খ) পরিচালনা পরিষদ:

পরিচালনা পরিষদের পরিষদের কাঠামো :

(১.১) শিখরী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যগণ ( অনুচ্ছেদ-০৬, ধারা-ক তে বর্ণিত) পরিচালনা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে গণ্য হবেন,

(১.২) এই পরিষদের সদস্য সংখ্যা হবে সুনির্দিষ্ট এবং যা হবে অনধিক ০৫(পাঁচ) জন।

(১.৩) একজন সভাপতি (অনুচ্ছেদ ‘১০’, ধারা-গ অনুযায়ী নির্বাচিত) এবং অনধিক ০৪ (চার) জন সদস্যের সমন্বয়ে এই পরিষদ গঠিত হবে।

পরিচালনা পরিষদের দায়িত্ব ক্ষমতা :

(২) এই পরিষদ ফাউন্ডেশনের যাবতীয় সকল কর্মকান্ডের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন এবং সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য কার্য নির্বাহী পরিষদকে দিকনির্দেশনা প্রদান করবেন,

(৩) এছাড়া এই পরিষদ সাধারণ পরিষদ ও কার্য নির্বাহী পরিষদ কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্প/সিদ্ধান্ত/প্রস্তাবনা চূড়ান্ত অনুমোদন প্রদান কিংবা বাতিল করবেন,

(৪) শিখরী ফাউন্ডেশনের সকল সদস্য এই পরিষদের নিকট দায়বদ্ধ থাকবেন,

(৫) একইভাবে এই পরিষদ ফাউন্ডেশনের যেকোন কর্মকান্ডের জন্য সাধারণ পরিষদের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাঁদের নিকট  জবাবদিহি করতে বাধ্য থাকবেন,

(৬) এই পরিষদ কার্য নির্বাহী পরিষদের অনুমোদন ব্যতীত এককভাবে কোন ধরণের কার্যক্রম চালাতে পারবেনা।

(৭) এই পরিষদ প্রয়োজনীয় যাচাই-বাছাই করে সাধারণ পরিষদ কর্তৃক গঠিত কার্য নির্বাহী পরিষদকে চূড়ান্ত অনুমোদন প্রদান করবেন,

(৮) শিখরী ফাউন্ডেশনের ব্যপারে পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

(গ) সাধারণ পরিষদ:

সাধারণ পরিষদের কাঠামো :

(১) প্রতিষ্ঠাতা, স্থায়ী ও সাধারণ সদস্য, আজীবন সদস্য এবং দাতা সদস্যের সমন্বয়ে এ পরিষদ গঠিত হবে।

(২) পরিচালনা পরিষদের মাননীয় সভাপতি পদাধিকারবলে সাধারণ পরিষদের সভাপতি হিসেবে অধিষ্ঠিত থাকবেন।

সাধারণ পরিষদের দায়িত্ব ক্ষমতা :

(৩) এই পরিষদ বার্ষিক বাজেট অনুমোদন, বার্ষিক অডিট রিপোর্ট পর্যালোচনা, গঠনতন্ত্র সংশোধন ও অন্যান্য জটিল বিষয়াদির সমাধান করবেন।

(৪) এই পরিষদের অধিবেশন বৎসরে একবার অনুষ্ঠিত হবে। তবে তা বিশেষ প্রয়োজনে একাধিকবার করা যেতে পারে।

(৫) এই পরিষদ শিখরী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যগণের ( অনুচ্ছেদ-০৬, ধারা-ক তে বর্ণিত) মধ্য থেকে যেকোন একজনকে ভোটের মাধ্যমে পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি হিসেবে পরবর্তী ০১ (এক) বছরের জন্য নির্বাচন করবেন।

(৫.১) এই পরিষদ প্রয়োজনীয় যোগ্যতা থাকা সাপেক্ষে সাধারণ পরিষদের যেকোন একজন সদস্যকে কার্য নির্বাহী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পরবর্তী ০১ (এক) বছরের জন্য নির্বাচন করবেন।

(৫.২) এই পরিষদ বর্তমান কার্য নির্বাহী পরিষদ কর্তৃক সুপারিশকৃত অনধিক ৪১(একচল্লিশ) জন সাধারণ পরিষদ সদস্য থেকে পরবর্তী এক বছরের জন্য অনধিক ২১ (একুশ) সদস্যবিশিষ্ট কার্য নির্বাহী পরিষদ গঠন করে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পরিচালনা পরিষদে পাঠাবেন।

(ঘ) কার্য নির্বাহী পরিষদ:

কার্য নির্বাহী পরিষদের কাঠামো :

(১) সাধারণ পরিষদের সদস্যগণের মধ্য থেকে শিখরী ফাউন্ডেশনের ২১ (একুশ) সদস্য বিশিষ্ট একটি কার্য নির্বাহী পরিষদ থাকবে। তবে,

(১.১) সাধারণ পরিষদ কর্তৃক অনুচ্ছেদ ‘১০’, ধারা-গ অনুযায়ী নির্বাচিত পরিচালনা পরিষদের মাননীয় সভাপতি পদাধিকারবলে কার্য নির্বাহী পরিষদের সভাপতি হিসেবে অধিষ্ঠিত হবেন।

(১.২) সাধারণ পরিষদ কর্তৃক অনুচ্ছেদ ‘১০’, ধারা-গ অনুযায়ী কার্য নির্বাহী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন।

(১.৩) কার্য নির্বাহী পরিষদের অন্যান্য সদস্যগণ গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ‘১০’, ধারা-গ  অনুযায়ী নির্বাচিত হবেন এবং মাননীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আলোচনা করে তাদেরকে বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠিত করবেন।

(২.১) এই পরিষদের মেয়াদ হবে দায়িত্ব গ্রহণের সময় থেকে পরবর্তী ০১(এক) বছর,

(২.২) যৌক্তিক কারণবশতঃ পরিচালনা পরিষদ ইচ্ছা করলে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই এই পরিষদ ভেঙে নতুন পরিষদ আহবান করতে পারবেন,

(২.৩) মেয়াদ শেষ হবার পর বিশেষ যৌক্তিক কারণবশতঃ পরিচালনা পরিষদের অনুমতি সাপেক্ষে অনধিক ৯০(নব্বই) দিন পর্যন্ত এর মেয়াদ বলবৎ থাকবে।

(৩) কার্য নির্বাহী পরিষদের মেয়াদ শেষ হওয়ার ০১(এক) মাস পূর্বে পরবর্তী কার্য নির্বাহী পরিষদ গঠনের উদ্দেশ্যে সাধারণ পরিষদ থেকে অনধিক ৪১(একচল্লিশ) জন সদস্যের নাম বাছাই করে সাধারণ পরিষদের নিকট জমা দিতে হবে।

কার্য নির্বাহী পরিষদের দায়িত্ব ক্ষমতা :

(৪.১) এই পরিষদ ফাউন্ডেশনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যাবতীয় কর্মসূচী বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প/সিদ্ধান্ত/প্রস্তাবনা অনুমোদনের জন্য পরিচালনা পরিষদের নিকট উত্থাপন করবেন,

(৪.২) পরিচালনা পরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত বিভিন্ন প্রকল্প/সিদ্ধান্ত/প্রস্তাবনা/কর্মসূচী সমূহের সফল বাস্তবায়ন করবেন কার্য নির্বাহী পরিষদ,

(৪.৩) কার্য নির্বাহী পরিষদ একইসাথে সাধারণ পরিষদ ও পরিচালনা পরিষদের নিকট দায়বদ্ধ থাকবেন।

(৪.৪) সাধারণ পরিষদের পক্ষে ফাউন্ডেশনের পরিচালনা ও কার্যাবলীর সমম্বয় সাধনের সামগ্রিক দায়িত্ব নির্বাহী পরিষদের উপর ন্যস্ত থাকবে।

(৪.৫) নির্বাহী পরিষদ ফাউন্ডেশনের সুষ্ঠু পরিচালনার্থে বিধিমালা প্রণয়ন, অনুমোদন ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।

(৪.৬) বার্ষিক বাজেট ও অডিট রিপোর্ট পর্যালোচনা ও অনুমোদনের জন্য সাধারণ পরিষদে উপস্থাপন, বার্ষিক প্রতিবেদন প্রণয়ন, সংস্থার  কার্যক্রম পর্যালোচনা ইত্যাদি কাজের জন্য নির্বাহী পরিষদ দায়ী থাকবে।

(৪.৭) পরিচালনা পরিষদের অনুমতি সাপেক্ষে সংগঠনের প্রয়োজনে কর্মচারী নিয়োগ, বিভিন্ন কমিটি এবং সাব কমিটি গঠন, নতুন সদস্য অন্তর্ভূক্তি ও সদস্যপদ বাতিলের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে নির্বাহী পরিষদ,

(৪.৮) গঠনতন্ত্রের ধারায় যার ব্যাখ্যা বা সুরাহা নেই তার ব্যাখ্যা প্রদান ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে নির্বাহী পরিষদ।

 নিম্নলিখিত এক বা একাধিক কারণে কোন নির্বাহী সদস্য তার সদস্যপদ হারাতে পারেন:

(৫.১)     যদি কোন সদস্য একাদিকক্রমে নির্বাহী পরিষদের পর পর তিনটি সভায় অনুপস্থিত থাকেন;

(৫.২)     যদি কোন সদস্য স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেন এবং তার পদত্যাগ পত্র নির্বাহী পরিষদ কর্তৃক গৃহীত হয়;

(৫.৩)     যদি কোন সদস্য মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন;

(৫.৪)     যদি কোন সদস্যের কাজ কর্ম ফাউন্ডেশনের স্বার্থের পরিপন্থি বলে বিবেচিত হয়;

(৫.৫)     যদি কোন সদস্যের মৃত্যু হয়।

(শিখরী ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ-এর ২৬/১২/২০১৫ খ্রিঃ ১ম বার্ষিক সাধারণ সভায় অনুচ্ছেদ-০১ হতে অনুচ্ছেদ-২২ বর্ণিত গঠনতন্ত্র অনুমোদিত হয়)